আপনার শরীরেই তৈরি হতে পারে অ্যালকোহল?

অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমটি গাট ফারমেন্টেশন সিনড্রোম নামেও পরিচিত। অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোম একটি বিরল অবস্থা, যেখানে গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সিস্টেমে গাঁজনের মাধ্যমে ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়া ইথানল উৎপান্ন করে। আপনি যখন খাবার হজম করেন, তখন স্বাভাবিকভাবেই আপনার শরীরে কিছু ইথানল উৎপান্ন হয়। তবে সে পরিমাণটা খুবই সামান্য। কিন্তু যখন আপনার শরীরে ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়া থাকে, তখন এটি চরম মাত্রায় অ্যালকোহল তৈরি করতে পারে

মদ না খেয়েও মাতাল হওয়ার অদ্ভুত এক ঘটনা ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। ৪৬ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির পাকস্থলীতে বাসা বাঁধা ছত্রাকের কারণে শর্করা পরিণত হচ্ছিল অ্যালকোহলে। এতে তার স্মৃতিবিভ্রাট হতে থাকে। কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ার পাশাপাশি মাথাঘোরার রোগও বাসা বাঁধে শরীরে। গবেষকরা বিরল এ রোগকে বলছেন অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোম। সম্প্রতি প্রকাশিত নতুন একটি কেস রিপোর্টে এ ঘটনা উঠে এসেছে।

বিএমজে ওপেন গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি কেস রিপোর্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১১ সালে ওই ব্যক্তির আঙুলে একটি চোট লেগেছিল। তারপর এক চিকিৎসকের পরামর্শে কয়েকটি অ্যান্টিবায়োটিক খেয়েছিলেন তিনি। এরপর তার স্মৃতিবিভ্রাট, মানসিক ভারসাম্যহীনতা ও মাথাঘোরা রোগ শুরু হয়।

এরপর ২০১৪ সালে ওই ব্যক্তিকে অতিরিক্ত অ্যালকোহল খেয়ে গাড়ি চালানোর অভিযোগে আটক করে নিউইয়র্ক পুলিশ। ব্রেথলাইজার টেস্টে ধরা পড়ে তার শরীরে স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি অ্যালকোহল থাকার বিষয়টি। কিন্তু ওই ব্যক্তির দাবি ছিল যে তিনি মদ্যপান করেননি। এর পর থেকে প্রায় প্রতিদিনই তার সঙ্গে এ ধরনের বিপত্তি ঘটতে থাকে। তিনি অবাক হয়ে লক্ষ করেন, মদ না খেলেও তার শরীরে অ্যালকোহলের মাত্রা বাড়ছে। তিন বছর ধরে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখে নিউইয়র্কের রিচমন্ড বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের এক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন তিনি।

তার পরই জানা যায়, তার শরীরে থাকা অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোম নামে বিরল রোগের কারণে এ অভিনব ঘটনা ঘটছে। তার পায়খানা পরীক্ষা করে স্যাকারোমাইসিস সেরাভিসি নামে বিশেষ প্রজাতির ছত্রাক পাওয়া যায়। সে ছত্রাকটি ব্যবহার করেই শর্করাকে অ্যালকোহলে পরিণত করেন বিয়ার নির্মাতারা। তার পাকস্থলীতেই বিশেষ ধরনের ওই ছত্রাকটি রয়েছে। ফলে তিনি যখনই শর্করাজাতীয় খাবার খান, তখনই তা অ্যালকোহলে পরিণত হয়। এরপর তাকে ছত্রাকবিরোধী ওষুধ দেয়া হয় এবং ছয় সপ্তাহ ধরে শর্করাজাতীয় খাবার বন্ধ করতে বলা হয়। শেষ পর্যন্ত তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেন।

তবে এ ঘটনা এটাই প্রথম নয়। এর আগে ২০১৬ সালে নিউইয়র্কের এক নারী অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমে আক্রান্ত হন এবং ‘মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালানোর অপরাধে’ পুলিশের হাতে আটক হয়ে খবরের শিরোনাম হন। টেক্সাসের এক ব্যক্তিও বিরল এ রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাদের সবারই আইনি সীমার চেয়ে অ্যালকোহলেন মাত্রা পাঁচ গুণ বেশি ছিল।

অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমটা আসলে কী?

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল লাইব্রেরি অব মেডিসিন বিভাগ বলছে, অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমটি গাট ফারমেন্টেশন সিনড্রোম নামেও পরিচিত। অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোম একটি বিরল অবস্থা, যেখানে গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সিস্টেমে গাঁজনের মাধ্যমে ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়া ইথানল উত্পন্ন করে।

আপনি যখন খাবার হজম করেন, তখন স্বাভাবিকভাবেই আপনার শরীরে কিছু ইথানল উত্পন্ন হয়। তবে সে পরিমাণটা খুবই সামান্য। কিন্তু যখন আপনার শরীরে ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়া থাকে, তখন এটি চরম মাত্রায় অ্যালকোহল উত্পন্ন করতে পারে।

যেকোনো ব্যক্তিই এই অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমে আক্রান্ত হতে পারেন। তবে ডায়াবেটিস, স্থূলতা ও ক্রোহন রোগীদের ক্ষেত্রে এটি বেশি ঘটে।

অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমের লক্ষণ

এটার প্রধান লক্ষণ হলো অ্যালকোহল পান না করেই মানুষকে মাতালের মতো দেখাবে। এর সঙ্গে বমিভাব, ঢেঁকুর তোলা, মাথাঘোরা, শরীরের ভারসাম্য হ্রাস এবং স্মৃতিশক্তি হ্রাসের মতো লক্ষণগুলো দেখা যেতে পারে। এমন রোগীদের সাধারণত উচ্চ চিনি ও কার্বোহাইড্রেট ডায়েট থাকে।

অটো-ব্রিউয়ারি সিনড্রোমের চিকিৎসা

বিরল এ রোগের চিকিৎসার ক্ষেত্রে কয়েকটি বিকল্প রয়েছে। শুরুতে রোগীর তীব্র অ্যালকোহলের বিষক্রিয়ার চিকিৎসা প্রয়োজন। তারপরে এ লক্ষণগুলো সৃষ্টির জন্য দায়ী ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়ার চিকিৎসা নিতে হবে। চিকিৎসার জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয় বিষয় হলো, এ রোগীর লক্ষণগুলো শেষ না হওয়া পর্যন্ত উচ্চ প্রোটিন ও কম মাত্রার কার্বোহাইড্রেটযুক্ত খাবার খাওয়া। এটি অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য রক্ষা করতে প্রোবায়োটিকগুলোকে অনুসরণ করে।

তবে এ রোগের চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ ঝুঁকি আরো বাড়াতে পারে। যে কেউ পুনরায় এ রোগের ঝুঁকিতে পড়তে পারে। এ কারণে রোগীকে পর্যবেক্ষণ করা এবং অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের প্রয়োজন হলে পরিপূর্ণ চিকিৎসা করা গুরুত্বপূর্ণ।

কেস রিপোর্টের ওই ব্যক্তি এখন কার্বোহাইড্রেটযুক্ত খাবার খেতে পারেন এবং সে উপসর্গগুলো এখন আর নেই। কিন্তু কী কারণে তার এ রোগ হতে পারে? চিকিৎসকরা মনে করছেন, আঙুলে আঘাতের জন্য অ্যান্টিবায়োটিকের দীর্ঘ কোর্স তার এ অবস্থা সৃষ্টির জন্য দায়ী হতে পারে। এটা তার অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়াকে পরিবর্তন করে দিয়েছিল।

সূত্র: প্রিভেনশন

Share

Recent Posts

গোল্ডেন মিল্কশেকের উপকারিতা

গোল্ডেন মিল্ক, হলুদের দুধ নামেও পরিচিত। প্রাচীন ভারতবর্ষের একটি স্বাস্থ্যকর পানীয়, আজ যা পশ্চিমা সংস্কৃতিতে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এই উজ্জ্বল… Read More

February 6, 2023

কুসুম গরম পানিতে শরীর-মন তাজা

শীতের সময় আমাদের শরীর রুক্ষ হয়ে ওঠে, যার দরুন পেটে সমস্যা, খিদে না লাগা থেকে শুরু করে ত্বকের অনেক সমস্যাই… Read More

January 16, 2023

লাল মুলার নানা উপকারিতা

মুলার উপকারিতা অনেক। বিশেষত লাল মুলার। নানাভাবেই এটা খাওয়া যায়। তবে সালাদ করে খাওয়াটা বেশি উপকারী। জানাচ্ছেন খাদ্য ও পথ্যবিশেষজ্ঞ আলমগীর… Read More

January 16, 2023

This website uses cookies.